অন্তিম তিথি-সচেতনতা – রাণা চ্যাটার্জী

                 sahityasmriti.com
সব কিছু জিনিসের একটা অন্তিম তিথি থাকে,যেমন থাকে প্রস্তুতির তারিখও। এই সেদিন রান্নার মধ্যম লগ্নে গৃহিনী বার্তা দিলেন, হলুদ শেষ,কি আর করা যাবে! সংসার নামক ভারসাম্যকারী নৌকায় চেপেছি যখন,অবশ্য আমি ,আড়ালে বলি” সং আর সার” সং সেজে থাকা,যার সার বলে কিছুই নেই!
কতবার বলি,শেষ হবার আগে একটু বলবে,কুকের তো সে সব খেয়াল থাকেনা।সপ্তমে মেজাজ নিয়ে ঝড়ের গতিতে আসে কখন পরের বাড়ি পৌঁছাবে ভাবনায়। যাই হোক ব্যস্ত জীবনে সব কেটে,বেঁটে, রেডি রাখলে উনি খুন্তি নাড়তে এলেও বেশ উপকারী । সাত সকালে স্কুল,অফিসের রান্না পেয়ে সত্যিই আপ্লুত হই আমরা।
অগত্যা কি করি,পড়ি কি মরি করে আনতে গেলাম হলুদ প্যাকেট।এনে দেখি কুক ভ্যানিস, হলুদ ছাড়াই অমন রং বিহীন তরকারি করে চলে গেছে অন্য বাড়ির হেঁসেলে। ততক্ষনে হলুদ প্যাকেট টা হাতে পড়ে তো আমার নয় বছরের মেয়ে, মা কে কমপ্লেন করা শুরু করে দিয়েছে,”মা দেখো ,বাবা ডেট পেরুনো হলুদ প্যাকেট এনেছে!” কি কপাল রে বাবা,হন্ত দন্ত হয়ে গেলাম,খুশি হবে কোথায়,সেই এত বড়ো ভুল করে ফেললাম ব্যবহারের অন্তিম তারিখ না দেখে!
দোষটা তো অবশ্যই আমারই ,ব্র্যান্ডের কোম্পানীর লোগো দেখার পর বিশ্বাসটা এমন  জায়গায় চলে যায়,তাড়াহুড়ো করে এক্সপায়ারী তারিখ দেখা হয় না। এটা কিন্তু কেবল আমি না আমাদের মধ্যে অনেকেই করি।তবে সচেতন ক্রেতা তো অবশ্যই আছে বরং বাড়ছে ধীরে হলেও।
ট্রেনে যে জল কিনি আমরা, খবরে দেখছিলাম,
সাধারণ মানের জলকে নতুন খালি হওয়া কুড়ানো  বোতলে ,ভরে নতুনের মতো দিব্যি প্যাকেট করে,কুড়ি টাকা দামের লেভেল সাঁটিয়ে বিক্রি চলে  রমরমিয়ে ! তাই ট্রেন, গন্তব্যে পৌঁছাতেই  ,ফাঁকা জলের বোতল সংগ্রহ করার তাড়াহুড়ো লেগে যায় ওই স্টেশনে রাত কাটানো অনাথ ,ছোট ,বড়, মাঝারি বাচ্ছা গুলোর মধ্যে। বড় চেনা এ  দৃশ্য। অগত্যা, কিছু করার তো নেই আমাদের। তৃষ্ণার ছাতি ফাটা পরিস্থিতিতে ধন্য হই এক বুঁদ ঠান্ডা জল পেয়ে জলের বোতল কিনে।
জিনিসের তাও একটা অন্তিম তারিখ আছে,যেটা দেখে আমরা বুঝতে পারি,কতদিন পর্যন্ত দ্রব্যটি ভালো থাকবে। কিন্তু আমাদের! এই আছি,এই বুঝি ফুড়ুৎ হওয়া ! ডেট অফ বার্থ জানি কিন্তু কবে আমার ফুরানোর দিন তা তো জানি না! সৃষ্টি কর্তার কারখানায় হয়তো আমাদের “অন্তিম তারিখ” টা সযত্নে রাখা আছে প্রত্যেকের।
এই ব্যস্ততার দিন যাপনে,কখন যে হটাৎ নিজ নিজ “অন্তিম তারিখ” টা আমাদের ডাক  দেবে সেটা নিজেরাও জানি না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *