চির শাশ্বত সুরে নিভৃতে গেয়ে চলা

বাবা   

ফরহাদ হোসেন

হাতে ফোসকা !
শরীরের চামড়া রোদে জ্বলে তামাটে ।
তবুও হাসতে জানে!
কত পরিশ্রম!কত সংগ্রাম!
জীবনে মায়া যেন পরিবারে বাঁধা।
উজ্জ্বল দুটো চোখ।
হাসি সহজলভ্য।
কষ্ট কঠিন জিনিস?
এসব নাকি রোমান্সকর অভিঙ্গতা!
এক বিন্দু ঘাম।
সন্তানের প্রতিটা কোষের দাম।
এত ঋণ!
কেমন করে হবে শোধ?
যুগে যুগে উত্তর আজানা!

প্রশ্ন  !    

ভালোবাসো?
কঠিন ছিল প্রশ্নটা!
হৃদয় থেকে মুখ পর্যন্ত এসেছিল।
লজ্জায়,ভয়ে বলতে পারিনি!
তুমি মুখ ফিরিয়ে চলে গেছ সূদুরে।
আমি কর্মসূত্রে হয়েছি গৃহত্যাগী।
নদীর জল সমুদ্রে মিশেছে।
গাছের সবুজ পাতা বিবর্ণ হয়ে ঝরে ঝরে পড়েছে।
ভুলতে চেয়েছি কতনা কৌশলে,কত ছলে!
জীবনছন্দ বেসুরো ভয়ে আর লাজে।
ব‍্যর্থ প্রেমের গানে।
আজ লাজ নেই।
ভয় নেই।
পাড়ার মাস্তান দাদার চোখ রাঙ্গানি অবলিলায় উপেক্ষা করি।
তবুও একটি আক্ষেপ,
বুকে বাসা বাঁধা।
চির শাশ্বত সুরে নিভৃতে গেয়ে চলা-
ভালোবাসি!ভালোবাসি!

কবিতা  !

কবিতা লিখবো।
রোমান্টিক কবিতা!
কেউ একজন আসবে এলোচুলে,সুন্দর চোখ নিয়ে।
দিয়ে যাবে কবিতার উপাদান।
হব আমি কবি!
আসবে সে!চোখে চোখ রাখবে সে।
খাতা পর খতা ভরবে রুপক,অলংকারে‌।
প্রেয়সীর রুপ ভাঙ্গবো,গড়বো।
আকাশের চাঁদকেও হার মানাবো।
আসেনি সে!
চোখে চোখ রাখেনি সে!
কবিতার ভাষা অপেক্ষায় ঠাসা!

কেউ কি এমন হবে

কেউ কি এমন হবে?
যে শুধু আমার জন্য সুন্দর করে সাজবে।
কপালের টিপ বারবার নাড়িয়ে ঠিক জায়গায় সুকৌশলে স্থাপন করবে।
কেউ কি এমন হবে?
যে গভীর রাতে দুঃস্বপ্নে জেগে উঠে আমার কথা মনে করে শান্তির দীর্ঘনিশ্বাস ছাড়বে।
মুখে একটু হাসি নিয়ে আবার ঘুমিয়ে পড়বে।
কেউ কি এমন হবে?
যে কথার ছলে অন্য কারো মুখ থেকে বারবার আমার কথা শুনতে চাইবে।
কেউ বলুক আর না বলুক।
সে অপেক্ষায় থাকবে।
কেউ কি এমন হবে?
যে আমার সঙ্গী হয়ে দূর কোন আজানা গন্তব্যে পাড়ি দেবে।
হয়তো হবে ছোট্ট কুঁড়ে ঘর।
আমার সঙ্গই হবে তার সবচে বড় প্রাপ্তি।
কষ্ট হবে!
তবুও যদি দেখায় দুঃসাহস।
কেউ কি এমন হবে?
যে আমার কষ্টে দুঃখ পাবে।
চোখ দিয়ে গড়িয়ে ফেলবে মহামূল্যবান মুক্ত মানিক।
কেউ কি এমন হবে?
যে আমার মনটা পড়তে পারবে।
পড়তে পড়তে বৃহত উপন্যাসের উপাদান খুঁজে পাবে।
কেউ কি এমন হবে?
যে আমাকে ভাবতে ভাবতে পৃথিবীর ভূগোল,ইতিহাস ভুলে যাবে।
হয়তো ভুলে যাবে সৃষ্টিতত্ত্ব,ঈশ্বরের মহীমা।
যদি হয় এমন কেউ।
নিজিকে না হয় রাঙ্গিয়ে নিতাম তারি রঙে।
সঙ্গ দিতাম মৃত্যু পর্যন্ত তারি সঙ্গে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: