মানুষ জানে না – অমিয়কুমার সেনগুপ্ত

ঝংকারে লাবণ্য বাড়ে। কে কেড়েছে জলের মহিমা!

আগুনের চক্রব্যুহ নয়, নয় শিবলিঙ্গে জল দিতে আসা

কুমারীর উৎসরণ। নৈবেদ্য পড়েই থাক, সময়ের পরাগকণিকা

সৌরমণ্ডলের ওই বৃত্তরেখা ভেদ করে দিগন্তের আড়ালে হারায়।

অনুচ্চার শব্দগুলি ভেঙে ভেঙে পথ পেরােন’র,

বাতিকগ্রস্ত ক্ষুধা। বসুধা গাে, চাঁদের আড়ালে কোন দ্যুতি

ফসলসবুজ মাঠে নক্ষত্রের অগ্নিপুঞ্জ জ্বালে !

গাছগুলি পুত্ৰপুত্রী নিয়ে তবু মাথাগুলি নুইয়ে রেখেছে

মাটির পায়ের পাতা ছুঁয়ে। দূরে কোন অচিন বাউল একমনে

একতারা হাতে নিয়ে বৃক্ষের বন্দনা গায়, মাটিকে প্রণাম করে ঘরে

ফিরে এসে বিছানায় শােয়।

গাছ জানে, মাটি তার মা।

মানুষ জানে না।

 

.

 

( বাক্প্রতিমা সাহিত্য পত্রিকা থেকে সংগৃহীত )

.

.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *