শব্দেরা লুকিয়ে ঐ শূন্যতায় // মাধব মণ্ডল

3

সবাই নিজের অস্তিত্ব জাহির করে

শত্রুরা যখন ঘাড়ের উপর

চিন্তায় চিন্তায় ভেঙে যেতে বসে মন

সামনে তখন একটাই পথ খোলা

রুখে দাঁড়াও…..

সবাই নিজের অস্তিত্ব জাহির করে

জন্মমাত্র সন্তানও।

আমার ঐ বাঘ ধরার কথাই ছিল

ধরেছি

তোমার কাছে তাকে আনার কথাই ছিল

এনেছি

এখন তুমি ঠিক করো তো

জলদি

বাঘ তোমাকে…. তুমি বাঘকে 

জলদি

কে কাকে খাবে।

দোলা গাড়িতে বসেই আছে 

দোল দিচ্ছে গুরু ছাগল

দেখছি আমি সব দেখছি

লিখছি আমি সব লিখছি

নেমে যখন মাটির বুকে

দেবে তোমায় বর্শা ঠুকে…..

সাবধানরে গুরু ছাগল

করিস নারে ওকে পাগল।

আমাদের ঘরের দোরে থই থই জল

আর ঘরের মধ্যে বিধ্বংসী আগুন

আমরা আগুনকেও গিলছি

জলকেও সইছি……

দিনগুলো গনগনে চাবুক

রাতগুলো কনকনে দুঃস্বপ্ন

চোখে ধোঁয়া মনে ঘুর্ণি…..

অথচ আমরা হাঁটছি

হাঁটছি কেঁচোর মত

হাঁটছি হাঁটছি আর হাঁটছি…..

প্রিয়জনেরও প্রিয়জন প্রবাসী বন্ধু আমার

তুমি খবরটা শুনে কাঁদবে না হাসবে

অথবা যুগপৎভাবে দুটিই করবে

সে বিষয়ে আমার কিচ্ছুটি জানা নেই

খবরটা হলো

এখানে আমরা সবাই ক্রুশবিদ্ধ হচ্ছি….

ভস্ম মেখে হয়েছি ব্যোমভোলা

সাদা হাতির ঝিকিমিকি স্বপ্নে

কী হবে আর!

মাৎস্যন্যায়ে শোষিত এ মন

সেলাই ছিঁড়ে চুঁইয়ে পড়া রসে

ডুবে মরি যে!

আবর্জনা জমছে শুধুই জমছে

আরেক দল অটল বিশ্বাসী

স্বপ্নে থাক।

ঘোরের ঘোরে মেরেছে থাবা বাঘ 

কী হাহাকার, এনেছি টেনে রোগ

বারংবার।

সবে আলাপ তো

তাই উচ্চকিত মন

তোমার গুণের সাগরে হে!

দেখি তো আঁন্ধার গুহা

তবে না বুঝব কিনা

সাপ-ব্যাঙ, হাতি-ঘোড়া!

ভোরের আবছায়া ছায়ায় ছায়ায়

হাড় সাদা সকাল সাঁতরে আসে

বাঁশ উদ্যানে তোমাদের বাড়ি

শিশির পড়ে টুপটাপ বাঁশের পাতায় পাতায়

পুকুরের জলে ধোঁয়া, ধোঁয়ার সংসার

থেকে থেকে কুয়াশার মিছিল মিছিল

একাকী এক কুবোপাখি পাশ দিয়ে

ফস করে লাফিয়ে পালায়

অামি তখনও পড়েই চলেছি মুগ্ধ ব্যাকরণ।

হঠাৎ প্রশ্নে সচকিত,

‘আপনি এত ভোরে আসেন?’

কি আর বলতে পারি

শুধু হাসি আর হাসি

আমি যে ঢেউয়ে ঢেউয়ে সাঁতরে সাঁতরে ভাসি

আর মন দিই মুগ্ধ ব্যাকরণে!

মরতে ছুটছিল

তুমিই তো এলে–

সোনা রোদ্দুর

কাতরাচ্ছিল সে

নরম ছোঁয়ায়–

সবই হল দূর।

১০

চোখ ফুটল যেই

ভুললি অতীত সেই।

অতীতেতে কী ছিল?

মা ছিল ও মায়া ছিল।

ও মায়াতে কী ছিল

শাঁখা সিঁদুর ঘি ছিল।

তাতে তোর কী হল?

তাতে তো চোখ ফুটল।

jcv

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *