কিশলয়  মিত্র

আমার হৃদয়খানি কেবলই

 

sahityasmriti

তোমাকে মুহূর্তের জন‍্য পাওয়া
আর নিঃশব্দে গলাধকরণ
অনায়াসে তা না করে —
তোমায়,
কেবলই মনের গভীরে
প্রতিবিম্ব সৃষ্টি করি,
আর দেখে আপ্লুত হই ।

আজ নানা রঙে ধরা দিতে চাই
কিন্তু……….;

সুগন্ধে মনের রন্ধ্রে তোমার
অবাধ গতিবিধি ;
সাতরাঙা রামধনুর বর্ণচ্ছটায়
আমার হৃদয়খানি কেবলই বাঁধা।

Î

শুভ্র

শুভ্র, ও শুভ্র, ওঠ্ বাবা ওঠ্

চেয়ে দেখ্ এসেছে শরৎ

তোর অপেক্ষায় দিন গুনে-গুনে

হাতের করগুলি বুঝি গেল ক্ষয়ে।

আকাশে বাতাসে কান পেতে

ওরে অভাগা শোন্ ,

ঢাকও তোকে ডাকতে বলে

ঢাক-গুড়গুড় বোল ।

ওই মাঠের ধারে ঝোপের কোণে

কাদের বাড়ির ঘাটের পাড়ে

ফুটেছে একরাশ কাশ,

ফুলগুলি  তুই তোল ।

আর ঘুমাস না পড়ে-পড়ে

সোনালি রাঙা রোদ্দুরে

পাকাধানে যেন কে ছড়ায়েছে

একমুঠো নিয়ে তারে ।

প্রভাতী কিবা গোধূলিতে

একবারটি চেয়ে দেখ না নিজে

শিউলিও এসেছে তোকে

বরণ করতে, রাতের অন্ধকারে।

যেন তারে দিস্ না ফিরায়ে

                ওঠ্ বাবা ওঠ্ ,ওরে।

নির্মল যে চাঁদ সেও ঢেকছে

কালো মেঘের ছায়া ফেলে

তুই শুভ্র বাঁচিয়ে তোল

আগমনির গান গেয়ে ।

তুই আছিস্ তাই সুন্দর শরৎ

আজও নৃত‍্যে ফেরে

শিউলির ডালে মঞ্জুরি মেলে

পাখিরা গুঞ্জন সুরে ।

বাঁচার রসদ নিত‍্য খোঁজে

                   বিশ্বস্বপ্ন বুকে।

শুভ্র রে তুই রাতের অন্ধকার

ঘুচিয়ে আন আলো

দুঃখি-র কলিজায় ধেলে দে তুই

নিত‍্য দোদুল ছন্দ ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: